রসিক নির্বাচনে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত

78

রংপুর:রংপুর সিটি কর্পোরেশনের নির্বাচনে প্রার্থীদের আচরণবিধি পর্যবেক্ষণ করতে নগরীর ৩৩টি ওয়ার্ডে মাঠে নেমেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।

মঙ্গলবার থেকে  ছয়জন ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে আচরণবিধি পর্যবেক্ষণের কাজ শুরু হয়েছে বলে জানিয়েছেন রংপুর আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা সুভাষ চন্দ্র সরকার।

সুভাষ চন্দ্র জানান, কোনো প্রার্থী যাতে আচরণবিধি লঙ্ঘন করতে না পারেন তাই ৩৩টি ওয়ার্ডে ছয়টি ভ্রাম্যমাণ আদালত কাজ করছে।

সুভাষ চন্দ্র সরকার বলেন, অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ রংপুর সিটি নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশন প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এজন্য রাজনৈতিক দলসহ সবার সহযোগিতা প্রয়োজন।

সিটি কর্পোরেশন আইন-বিধি অনুযায়ী, প্রতীক বরাদ্দের আগে প্রার্থীদের প্রচারের কোনো সুযোগ না থাকলেও এবারের নির্বাচন ঘিরে আগাম প্রচারণা শুরু করেন প্রার্থীরা। তফসিল ঘোষণার আগে গত ১ নভেম্বর ইসির নির্বাচন পরিচালনা শাখার যুগ্ম সচিব ফরহাদ আহম্মদ খান রংপুর বিভাগীয় কমিশনার বরাবর প্রেরিত এক চিঠিতে সম্ভাব্য প্রার্থীদের সব ধরনের আগাম প্রচার সামগ্রী ২ নভেম্বরের মধ্যে সরিয়ে নিতে নির্দেশ দেন। পরে ৫ নভেম্বর নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়।

এদিকে বর্তমান মেয়র সরফুদ্দীন আহমেদ ঝন্টু পুলিশের গাড়িসহ সরকারি সুযোগ-সুবিধা নিয়ে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করে প্রচার চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ তুলে তফসিল ঘোষণার দিনই রংপুর আঞ্চলিক ও জেলা নির্বাচন অফিস ঘেরাও করে বিক্ষোভ করে সচেতন নাগরিক কমিটির ব্যানারে সম্ভাব্য মেয়র প্রার্থী ও আওয়ামী লীগ নেতা রাশেক রহমানের সমর্থকরা।

এছাড়াও নির্বাচনী আইন অমান্য করে প্রচারণা অব্যাহত রাখার অভিযোগ এনে ৭ নভেম্বর আবারও রংপুরের স্থানীয় একটি হোটেলে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন রাশেক রহমান।