লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন শেখ হাসিনা

36

রংপুর বার্তা:গ্লোবাল উইম্যান লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ পেয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।নারীর শিক্ষা, উন্নয়ন ও ক্ষমতায়নে  অবদান রাখার জন্য তিনি অ্যাওয়ার্ড’ পান।

শুক্রবার অস্ট্রেলিয়ার সিডনির ইন্টরন্যাশনাল কনভেনশন সেন্টারে এক অনাড়ম্বর অনুষ্ঠানে ‘গ্লোবাল সামিট অব উইমেন’ এ শেখ হাসিনার হাতে এই পদক তুলে দেয়া হয়।

এই সম্মেলনে যোগ দিতে দেশের বিভিন্ন দেশ থেকে নারীর অধিকারের পক্ষে যারা কাজ করছেন, তাদের আমন্ত্রণ জানানো হয়।

আন্তর্জাতিক পুরস্কার প্রধানমন্ত্রীর জন্য নতুন নয়। গত আট বছর এবং ১৯৯৬-২০০১ মেয়াদে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এর আগেও ২৭টি পুরস্কার ও পদক পেয়েছেন তিনি ও রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশ।

এসব পুরস্কারের মধ্যে শেখ হাসিনা চারটি পেয়েছেন জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা থেকে। এর মধ্যে আছে, পার্বত্য শান্তি চুক্তি করায় ১৯৯৮ সালে ইউনেস্কো কর্তৃক হাটপাওয়েট-বোজনি পুরস্কার, শিশু মৃত্যুর হার কমানোর ক্ষেত্রে ২০১০ সালে এমডিজি অ্যাওয়ার্ড, নারী ও শিশু স্বাস্থ্যের উন্নয়নের জন্য পরের বছর সাউথ সাউথ অ্যাওয়ার্ড এবং পরিবেশ রক্ষায় অবদানের জন্য ২০১৫ সালে পাওয়া চ্যাম্পিয়ন অব দ্য আর্থ পুরস্কার।

সবশেষ সংযোজন ‘গ্লোবাল উইম্যান লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ এর জন্য মনোনীত করায় প্রধানমন্ত্রী গর্বিত বলে জানিয়েছেন। বলেন, ‘বিশ্ব পরিবর্তনে অবদান রাখা নারীদের সঙ্গে থাকতে পেরে আমি নিজেকে গর্বিত বোধ করছি।’

পুরস্কারটি বিশ্বব্যাপী যে নারীরা বিশ্বকে পরিবর্তন করার জন্য সাধ্যমত চেষ্টা করছেন তাদেরকে উৎসর্গও করেন শেখ হাসিনা।

এই সম্মেলনে যোগ দিনে প্রধানমন্ত্রী বৃহস্পতিবার ঢাকা ছাড়েন। আর অস্ট্রেলিয়া গিয়ে দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রী জুলি বিশপের সঙ্গে সাক্ষাতে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে মিয়ানমারকে চাপ অব্যাহত রাখতে দেশটির প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

প্রধানমন্ত্রী জানান, ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরাম ২০১৭ এর প্রতিবেদন অনুযায়ী ১৪৪ টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশে অবস্থান ৪৭ তম এবং দক্ষিণ এশিয়ায় প্রথম।

নারীর ক্ষমতায়নে ১৫৫টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশে অবস্থান সপ্তম বলেও জানান শেখ হাসিনা।