রংপুর আর মঙ্গার কবলে পড়বে না-শেখ হাসিনা

25

রংপুর বাতা.কম:আমরা মানুষের জীবনমানের উন্নয়ন ঘটিয়ে আবারও নৌকায় ভোট চাই। রংপুর থেকে মঙ্গা তাড়িয়েছি।রংপুর আর মঙ্গার কবলে পড়বে না বললেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

রোববার পীরগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে রংপুর-৬ আসনের মহাজোটের প্রার্থী স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর পক্ষে নির্বাচনী জনসভায় ভাষণে প্রধান অতিথি হিসেবে তিনি এসব কথা বলেন।

বিএনপি-জামায়াতের উদ্দেশে তিনি বলেন, মানুষ পোড়ার গন্ধ তাদের গায়ে। তারা জানোয়ার। মানুষ পুড়িয়ে তারা আনন্দ পায়, ক্ষমতায় যেতে চায়।

এর আগে প্রধানমন্ত্রী দশম সংসদ নির্বাচনে ২০১৩ সালের ৩১ ডিসেম্বর এ আসনে তার সংসদ সদস্য প্রার্থিতার জন্য নির্বাচনী প্রচারণায় এসেছিলেন। উপনির্বাচনে জাতীয় সংসদের স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী এমপি হন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, এ আসন আমার। এখানে আমার মেয়ে ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে আপনাদের হাতে তুলে দিলাম। (এ এলাকার মানুষ) জয়-পুতুল-শিরীনকে সহযোগিতা করছে এবং করবে। তাকে ভোট দিলেই আমাকে ভোট দেয়া হবে।

তিনি আরও বলেন, আপনারা ভাগ্যবান। এক ভোটেই আপনারা প্রধানমন্ত্রী এবং স্পিকার পান।

এ সময় মঞ্চে উপস্থিত রংপুর-৫ মিঠাপুকুর আসনের নৌকা প্রতীকের এমপি প্রার্থী এইচএন আশিকুর রহমান ও রংপুর-৪ পীরগঞ্জ-কাউনিয়া আসনের নৌকা প্রতীকের এমপি প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা টিপু মুন্সিকে পরিচয় করিয়ে দেন।

অনুষ্ঠানে উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট আজিজুর রহমান রাঙ্গার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বি.এম মোজাম্মেল হক এমপি, আ.ফ.ম বাহাউদ্দিন নাছিম, আমজাদ হোসেন এবং খালিদ মাহমুদ চৌধুরী, রাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল ইসলাম ঠান্ডু, রংপুর জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মমতাজ উদ্দিন, ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি মাহমুদুল হাসান রিপন, রংপুর-৬ (পীরগঞ্জ) আসনের সাবেক সাংসদ ও উপজেলা চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মন্ডল, পৌর মেয়র ও উপজেলা আ’লীগের সাধারন সম্পাদক তাজিমুল ইসলাম শামীম, উপজেলা জাপার সম্পাদক নুরে আলম যাদু, চিত্রনায়ক ফেরদৌস, টিভি অভিনেত্রী তারিন, পূর্নিমাসহ কেন্দ্রীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।

এর আগে তিনি সকাল সকাল ১১টায় ঢাকা থেকে বিমানযোগে সৈয়দপুর বিমান বন্দরে অবতরণের পর রংপুরের তারাগঞ্জের জনসভায় ভাষণ দেন।

শেখ হাসিনার স্বামী প্রখ্যাত পরমাণু বিজ্ঞানী ড. ওয়াজেদ মিয়ার ফতেহপুরে মিয়াবাড়ীর পারিবারিক কবরস্থানে কবর জেয়ারত করেন। এরপর প্রধানমন্ত্রী ‘জয় সদন’ এ মধ্যাহ্নভোজন শেষে বাড়ির আঙ্গিনায় নিকটাত্মীয়দের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।