রংপুরের আকবরের নেতৃত্বে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন

17

রংপুর বার্তা.কম:রংপুর মহানগরীর পশ্চিম জুম্মাপাড়া এলাকার মোস্তফা-সাহিদা দম্পতির ক্রিকেট পাগল ছেলে আকবর আলির নেতৃত্বে দক্ষিণ আফ্রিকায় অনূর্ধ্ব-১৯ প্রথমবারের মতো ফাইনালে অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করল বাংলাদেশ।

বুদ্ধি দিয়ে মাঠে লড়াই করা রংপুরের আকবর আলি যে প্রশংসা কুড়িয়েছেন তা সত্যি বিস্ময়ের। এখন প্রশংসায় ভাসা আকবরের জন্য আনন্দে ভাসছে রংপুরবাসী।

এদিকে গত ২২ জানুয়ারির আকবরের একমাত্র বোন খাদিজা খাতুন না ফেরার দেশে পাড়ি জমান।বেঁচে নেই তার একমাত্র বোন খাদিজা খাতুন। যমজ সন্তান প্রসবকালে মারা যান তিনি।এই শোক ভুলে যাননি তিনি।

শোক নিয়ে টুর্নামেন্টে টানা দুই জয়ে দলকে রাখেন উৎফুল্ল।একমাত্র বোনকে হারানোর বেদনা বুকে চাপা দিয়ে দু’দিন পরই পাকিস্তানের বিপক্ষে মাঠে নামেন আকবর। শোককে শক্তিতে পরিণত করে একের পর এক জয়ে ফাইনালে উঠে যায় বাংলাদেশ।

আকবর চার ভাই ও এক বোনের মধ্যে চতুর্থ। একমাত্র বোন খাদিজা খাতুন ছিল আকবরের বড়।
আকবর আলী জয় নিয়েই দেশে ফেরার পণ করে খেলতে গিয়েছিলো। তার অদম্য ইচ্ছাই তাকে জয়ের পথে এগিয়ে নিয়ে গেছেন।

আকবর আলির কিছু কথা:ক্রিকেট পাগল আকবর আলি মাত্র ৬ বছর বয়সে পাড়ার গলিতে টেপ টেনিস বল আর ভাঙা ব্যাটে খেলা শুরু করেছিলেন।একদিন বড় ভাইয়ের পরামর্শে একাডেমিতে অনুশীলন করতে যান।পরে সেখান থেকে ক্লাস সিক্সে উঠে রংপুরের অসীম মেমোরিয়াল ক্রিকেট একাডেমিতে ভর্তি হন।সেখানে অঞ্জন সরকারের হাত ধরে রংপুর জিলা স্কুলের মাঠ থেকে ক্রিকেট যোদ্ধা হয়ে ওঠা।

২০১২ সালে বিকেএসপিতে ভর্তি হন তিনি।বিকেএসপির বয়সভিত্তিক দলে খেলার সুযোগ পেয়ে জাতীয় অনূর্ধ্ব-১৭ দলে খেলেন।

২০১৬ সালে তার এসএসসি পরীক্ষা ও প্রথম বিভাগ ক্রিকেট লিগ শুরু তখন তিনি লেখঅপড়া ও খেলা েএক সাথে চালান অবশেষে এসএসসিতে জিপিএ-৫ পান ও এইচএসসিতে জিপিএ ৪.৪২ পয়েন্ট পেয়ে পাশ করেন।